(প্রেস বিজ্ঞপ্তি) ঢাকা, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২৩ : আমাদের জাতীয় জীবনে এক শোকাবহ ও বেদনা-বিধুর দিন “শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস”। অতল শ্রদ্ধা আর অকৃত্রিম ভালোবাসায় স্মরণ করছি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। যারা, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে চুড়ান্ত বিজয়ের মাত্র দুই দিন আগে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের এদেশের দোসরদের হাতে নির্মমভাবে শাহাদাৎ বরণ করেছেন। গভীর শ্রদ্ধা, সমবেদনা এবং ভালোবাসা জানাচ্ছি শহীদ পরিবারের প্রতিটি সদস্যের প্রতি। পৃথিবীর বুকে যখন “বাংলাদেশ” নামে একটি স্বাধীন ভুখন্ডের অভ্যুদয় সু-নিশ্চিত। যখন টেকনাফ থেকে তেতুলিয়ার বিভিন্ন জনপদে লাল-সুবুজের বিজয় পতাকা পতপত করে উড়ছিলো। মুক্তিসেনারা যখন মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বিজয়-উল্লাসের প্রস্তুতি নিচ্ছিলো।

তখন, পাক হানাদার বাহিনী নিশ্চিত পরাজয় জেনে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছিলো। স্বাধীনতাকামী বাঙালী জাতি যেন মেধা-মননে মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারে, সে জন্য তারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বুদ্ধিজীবীদের হত্যায় মেতে ওঠে। বাংলাদেশীদের পঙ্গু জাতিতে পরিণত করতেই বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয়। এই নারকীয় হত্যাযজ্ঞে আত্মদান করেন অগণিত সূর্যসন্তান। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ আজীবন দেশপ্রেমের অনুপম অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। এখনো মিরপুর ও রায়েরবাজারের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ বাঙালী জাতির কাছে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার সৌধ হয়ে আছে। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের রেখে যাওয়া আদর্শ ও পথ অনুসরণ করে আমরা পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-এর স্বপের নতুন বাংলাদেশ গড়তে দৃপ্ত পায়ে এগিয়ে যাবো।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি

চেয়ারম্যান, জাতীয় পার্টি ও বিরোধীদলীয় উপনেতা বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ

error: Content is protected !!