ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর-২০২১ :

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেছেন, যে সরকার অন্যায়, অবিচার, অনাচার, দূর্ণীতি-দুঃশাসনের ভারে ক্রমেই ভারি হতে থাকেÑ সেই সরকারকে হঠাতে আন্দোলনের প্রয়োজন হয়না। ওই ভারেই তাদের ন্যুয়ে পড়তে হয়। বর্তমান সরকারের হয়েছে সেই অবস্থা। তিনি বলেন, দেশের মানুষ এখন কোনোভাবেই ভালো নেই। তারা চরম হতাশায় ভুগছে। এই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণের জন্য বিকল্প রাজনৈতিক শক্তির উত্থান ঘটানো ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই। এখন জাতীয় পার্টিই হচ্ছে দেশের মানুষের প্রত্যাশিত সেই রাজনৈতিক শক্তি। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জনাব জিএম কাদের আজ বৃহস্পতিবার তাঁর বনানীস্থ কার্যালয়ের মিলনায়তনে কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল ও করিমগঞ্জ উপজেলার আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই শতাধিক নেতাকর্মী আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পার্টিতে যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন। পার্টির মহাসচিব মোঃ মুজিবুল চুন্নু এমপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই যোগদান সভায় পার্টিতে যোগদানকারী নেতৃবৃন্দকে জাতীয় পার্টিতে স্বাগত জানিয়ে পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ক্ষমতাহীনভাবে ৩১ বছর ধরে টিকা থাকা আমাদের পার্টির প্রতি মানুষের আস্থা অর্জিত হয়েছে বলেই দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে বিভিন্ন দল থেকে নেতাকর্মীরা জাতীয় পার্টিতে যোগদান করছেন। দেশের রাজনীতিতে পরিবর্তন এখন অপরিহার্য। কারণ, আওয়ামী লীগ আর বিএনপি এখন অচল মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠে পরিণত হয়েছে। এই মুদ্রায় আর লেনদেন চলবে না।

তিনি বলেন, ৯০ এর পর দুটি দল দেশের মানুষকে শান্তিতে রাখতে পারেনি। সকল ক্ষেত্রে বিপর্যয়ের পরিস্থিতি চরম পর্যায়ে পৌছে গেছে। যানজটের কারণে নগরবাসী নাকাল অবস্থায় আছে। অযৌক্তিভাবে দ্রব্যমুল্য বেড়ে যাওয়া মানুষ এখন দিশেহারা। অর্থনীতি সচল রাখার স্নায়ুতন্ত্র তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়ে মানুষের জীবন দুর্বিসহ করা হয়েছে। আঁতাত করে ট্রান্সপোর্টের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে যুক্তিহীনভাবে। এই অবস্থায় দেশ চলতে পারেনা। জনাব জিএম কাদের বলেন, জনগণের প্রত্যাশা পূরণে এখন সকলে মিলে কাজ করতে হবে। আমাদের কল্যাণকামী রাজনীতিকে যদি প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম প্রবাহিত করতে পারি তাহলেই জাতীয় পার্টি টিকে থাকবে এবং জনগণের আশা আকাঙ্খার বাস্তবায়ন ঘটবে। তিনি বলেন, আজকের মতো যোগদান অব্যাহত থাকলেই জাতীয় পার্টি নতুন দিনে নতুন সূর্য হয়ে মানুষের মনে আলো ছড়াবে।

সভায় যোগদানকারী নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- তাড়াইল উপজেলা চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া শাহীন, করিমগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, তাড়াইল উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস সুলতানা, তাড়াইল উপজেলার আওয়ামী লীগ-এর সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া, করিমগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আমজাদ হোসেন খান দিদার, জাতীয় পার্টির নব নির্বাচিত ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন, সায়েম দাদ খান নওশাদ, আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, এড. মোঃ রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম পাঠান, যুগ্ম মহাসচিব জসীম উদ্দিন ভূঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আবুল খায়ের, দপ্তর সম্পাদক-২ এমএ রাজ্জাক খান, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক তিতাস মোস্তফা।

সুনীল শুভরায়

জাতীয় পার্টির মাননীয় চেয়ারম্যান-এর প্রেস এন্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারী