(সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)

ঢাকা- ১৪ ডিসেম্বর, বুধবার,২০২২।

অদ্য বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসাবে বেগম রওশন এরশাদ-কে নিয়োগের যে বিভ্রান্তির খবর প্রকাশিত হয়েছে তা পার্টির গঠনতন্ত্রের ধারা ২০ উপধারা ২ খ এর পরিপন্থী। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রের ধারা ২০ উপধারা ২ খ এর বিধান অনুযায়ী চেয়ারম্যানের দীর্ঘ সময়ের অনুপস্থিতিতে চেয়ারম্যান,জাতীয় পার্টিতে সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান কিংবা কো-চেয়ারম্যান পদে কেহ দায়িত্বে থাকিলে তাহাকে অন্যথায় প্রেসিডিয়ামের ১জন সদস্যকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসাবে মনোনীত করিতে পারিবেন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রেসিডিয়ামের সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করিবেন।

উপরোক্ত বিধান অনুযায়ী পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হওয়ার কোন এখতিয়ার নেই। এছাড়া ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নিয়োগের ক্ষমতা গঠনতন্ত্রে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপর অর্পিত আছে। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রের বিধান অনুযায়ী পার্টির যে কোন নিয়োগ, অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় কাউন্সিল শুধুমাত্র চেয়ারম্যানের উপর অর্পণ করেছে। কো-চেয়ারম্যান সহ অন্য কেউ নিয়োগ বা অপসারণের ক্ষমতা রাখেন না।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পদের উপর কোন আদালত কর্তৃক কোন নিষেধাজ্ঞা জারী হয় নাই অস্থায়ীভাবে চেয়ারম্যানের গঠনতান্ত্রিক দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা আছে। উপরোক্ত কারণে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে গোলাম মোহাম্মদ কাদের স্বপদে বহাল আছেন বিধায় অন্য কারো ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হওয়ার কোন এখতিয়ার বা সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানানো হলো।

বার্তা প্রেরকঃ-

( মাহমুদ আলম)

যুগ্ম দফতর সম্পাদক জাতীয় পার্টি।