ঢাকা, রবিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৪ :

জাতীয় পার্টি মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হচ্ছেন জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি। জাতীয় পার্টির নিবন্ধন নম্বর ১২। নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপিই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং আমি (মুজিবুল হক চুন্নু এমপি) মহাসচিব। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রে এমন কোন ধারা নেই, যে ধারার ক্ষমতায় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান, মহাসচিব বা অন্য কাউকে পদ থেকে বাদ দিতে পারে। এমন কিছু আমাদের গঠনতন্ত্রে নেই। তিনি বলেন, এই নিয়ে তৃতীয় বারের মত তিনি আমাদের বাদ দিয়েছেন। এর আগেও দুইবার আমাদের বাদ দিয়ে তিনি সেই চিঠি প্রত্যাহার করেছেন। তাই পার্টির মহাসচিব হিসেবে বেগম রওশন এরশাদের ঘোষণা নলেজে নিচ্ছি না। এই সিদ্ধান্তের কোন ভিত্তি নেই, এটি অগঠনতান্ত্রিক।

বেগম রওশন এরশাদের ঘোষণা আমরা আমলে নিচ্ছি না। অনিয়ম বা গঠনতন্ত্রের বাইরে মনের মাধুরী মিশিয়ে যে কেউ যা খুশি বলতে পারে, এনিয়ে আমাদের মাঝে কোন প্রতিক্রিয়া নেই। আজ বেলা ২টায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানীস্থ কার্যালয় মিলনায়তনে গণমাধ্যম কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি। অপর এক প্রশ্নে জবাবে জাতীয় পার্টি মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি আরো বলেন, বেগম রওশন এরশাদ হচ্ছেন জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যানের স্ত্রী, আমরা তাকে শ্রদ্ধা করি। সে কারণেই তাকে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক করা হয়েছে। তার দলীয় বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা নেই। প্রধান পৃষ্ঠপোষক পদটি হচ্ছে অলংকারিক পদ। এই পদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়ার দরকার নেই। যারা দলের সাথে নেই, পদ-পদবী নেই তাদের কোন কথার গুরুত্ব আছে বলে মনে করি না। দলের কোন বিষয়ে কিছু বলার সুযোগ নেই প্রধান পৃষ্ঠপোষকের। মুজিবুল হক চুন্নু এ সময় আরো বলেন, আমাদের দলের প্রেসিডিয়াম ও নির্বাহী কমিটির মিটিং ডাকা হবে, সেখানে বিশ্লেষণ করা হবে আমাদের রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে। জাতীয় পার্টি গোলাম মোহাম্মদ কাদের এর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছে। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম, নির্বাহী কমিটি, জেলা কমিটি এবং অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনগুলো জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছে।

খন্দকার দেলোয়ার জালালী

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর প্রেস সেক্রেটারি।

error: Content is protected !!